একের পর এক খুনের রহস্য উন্মোচনে সফল এস আই বিলাল আল আজাদ; ২ দিনের মাথায় হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার

সম্প্রতি রাধানীর যাত্রাবাড়ী থানাধীন কাজলায় এক মিষ্টির দোকানের কর্মচারী খুনের ঘটনার ২ দিনের মাথায় ঘাতক খুনিকে গ্রেফতারে সক্ষম হয়েছে যাত্রাবাড়ী থানার এসআই বিলাল আল আজাদ। জানা যায়, ২ জুলাই মঙ্গলবার দ্বিবাগত রাতে যাত্রাবাড়ীর কাজলাস্থ ঢাকা-ডেমরা মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে কর্ণফুলী সুইট মিট নামক মিষ্টির দোকানের কর্মচারি (আলী আমজাদ)‘কে কুপিয়ে হত্যা করে দোকানের নগদ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় একই দোকানের কর্মচারী আব্দুর রহমান ডিপজল। পরদিন ৩জুলাই বিকালে দোকানের তালা ভেঙ্গে মেঝেতে পরে থাকা কর্মচারী আলী আমজাদের লাশ উদ্ধার করে যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশ। এঘটনায় নিহতের ভাই আব্দুল আউয়াল বাদী হয়ে দোকানের কর্মচারী পলাতক আব্দুর রহমান ডিপজল (২০)সহ অজ্ঞাত ২/৩জনকে আসামী করে যাত্রাবাড়ী থানায় একটি খুনের মামলা করে। দোকানের মালিক সেন্টু ঘোষ বলেন আলী আমজাদ খান ও সদ্য নিয়োগকৃত আব্দুর রহমান ডিপজল সারাদিনের কাজ শেষে রাতে দোকানেই ঘুমাত। মঙ্গলবার রাতে

দোকানের হিসাব শেষ করে ৯,৭০০ টাকা আলী আমজাদের হাতে দিয়ে বাসায় চলে যাই। পরদিন বিকালে এসে দোকান তালাবদ্ধ অবস্থায় দেখতে পেয়ে আমজাদের মোবাইলে কল দিয়েও তাকে না পেয়ে পাশের দোকানীদের জিজ্ঞেস করলে তারা জানান সারাদিন দোকান বন্ধ ছিল। টিনশেট দোকানের পিছনের জানালা দিয়ে প্রবেশ করে টাকা রাখার বক্স ভাঙ্গা দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ এসে দোকানের তালা ভেঙ্গে নিহত আলী আমজাদের লাশ উদ্ধার করে আইনী প্রক্রিয়া শেষে ময়না তদন্তের জন্য মির্টফোর্ট হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক আসামী আব্দুর রহমান ডিপজলকে গ্রেফতারে নেমে পরে পুলিশ। যার নেতৃত্ব দেন যাত্রাবাড়ী থানার এস আই বিলাল আল আজাদ। মাত্র দুই দিনের মাথায় ৫জুলাই শুক্রবার পলাতক খুনিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন এসআই বিলাল আল আজাদ। এর আগেও অপরাধ দমনে বিশেষ অবদানের জন্য ডিএমপি থেকে শ্রেষ্ট এসআই ও একের পর এক খুনের রহস্য উন্মোচনে বেশ

আলোচনায় এসেছেন তিনি। সম্প্রতি সেই তালিকায় যুক্ত হলো আরো একটি সাফল্য। এ ব্যাপারে এসআই বলিাল আল আজাদ বলনে- মামলাটি রুজু হওয়ার পর , ওসি স্যার আমার উপর আস্থা রেখে তদন্ত ভার দনে। আমি মামলার ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরে ভিকটিমের ছবিগুলো দেখে এতটা আবগে আপ্লুত হই যে, নরমাল সেন্সে এভাবে একটা লোককে হত্যা করা আসলে অসম্ভব। তাৎক্ষণকিভাবইে প্রতজ্ঞিা করি যত দ্রুত সম্ভব এই হত্যাকারীকে আইনের আওতায় আনতে হবে। এর জন্য যত কষ্টই হোক না কেন আমি এই হত্যাকারী কে ধরার জন্য র্সবোচ্চ চষ্টো করব । একটু ভাবুন তো, আজকে যদি আপনার ভাই,

 

আপনার বাবা হতো, আপনার অনুভূতটিা কি হতো ? ঠিক একই অনুভুতি মনে লালন করে আমি সেটাকে প্রেরণা হিসেবে নিয়ে কাজ করি ।আমার কাধে হয়তো দায়ত্বিটা ছলি, কিন্তু প্রত্যেকে প্রত্যেকের অবস্থান থেকে  মামলা ডিটেক্ট করার জন্য আসামি ধরার জন্য র্সবোচ্চ টা দিয়েছে এবং আমরা একটা ভালো রেজাল্ট অল্প সময়ের মধ্যে পেয়েছি এই কৃতিত্ব টিম যাত্রাবাড়ীর। আসলে আমি শুধু উসিলা মাত্র , সবচেয়ে বড় তৃপ্তি এইখানেই আসলে পেরেছি, আমরা হত্যাকারীকে ধরতে পেরেছি। কোন পরিশ্রমই পরিশ্রম মনে হয় না যখন আপনি আপনার গন্তব্যে পৌঁছাবেন, তখন সকল পরশ্রিম, প্রত্যেকটা কষ্টের অনুভূতি আনন্দে রূপ নেয়। যেমনটা ওকে ধরার পরে সকল ক্লান্তি সবকছিু ভুলে গেছি। আমাদরে লক্ষ্যে আমরা পৌঁছাতে পেরেছি। উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব শাহ ইফতেখার আহমেদ স্যারের তত্তাবধানে এসি ডেমরা জোন জনাব রবিউল ইসলাম স্যারের নির্দেশনায় যাত্রাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মাজহারুল ইসলাম কাজল স্যারের সহায়তায় এসআই বিলাল আল আজাদ ও এস আই জনির নেতৃত্বে অভিযান পরিচালিত হয়। হত্যা মামলার আসামি আব্দুর রহমান ডিপজলকে গ্রেফতার করি

এদকিে যাত্রাবাড়ী থানার অফসিার ইনচার্জ মাজহারুল ইসলাম

কাজল এসআই বিলাল আল আজাদের সফলতায় ভবিষ্যতেও এই ধারাবাহিকতায়  দেশ ও জনসাধারণের কল্যানে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানান।
আসামী আব্দুর রহমান ডিপজল প্রাথমিক জিজ্ঞাসায় টাকা চুরির সময় তাকে দেখে ফেলায় এবং বাধা দেওয়ায় সে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে বলে স্বিকার করে।



চেয়ারম্যান ও প্রধান সম্পাদক : মনির চৌধুরী, সম্পাদক: মো: মোফাজ্জল হোসেন, সহকারী সম্পাদক : মোঃ শফিকুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালকঃ সৈয়দ ওমর ফারুক, নির্বাহী সম্পাদক: ঝরনা চৌধুরী।

সম্পাদকীয় কার্যালয়: ১২ পুরানাপল্টন,(এল মল্লিক কমপ্লেক্স ৬ষ্ট তলা)মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।
ফোন বার্তা বিভাগ: ০২-৯৫৫৪২৩৭,০১৭৭৯-৫২৫৩৩২,বিজ্ঞাপন:০১৮৪০-৯২২৯০১
বিভাগীয় কার্যালয়ঃ যশোর (তিন খাম্বার মোড়) ধর্মতলা, যশোর। মোবাইল: ০১৭৫৯-৫০০০১৫
Email : news24mohona@gmail.com, editormsangbad@gmail.com
© 2016 allrights reserved to MohonaSangbad24.Com | Desing & Development BY PopularITLtd.Com, Server Manneged BY PopularServer.Com